Google Add

এক আঙ্গিনায় বাংলাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ

ঢাকা, বাংলাদেশ।

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে, ডিজিটাল আলো . কম

বাংলাদেশের সর্ব প্রথম লার্নিং ম্যানেজমেন্ট ও পেশা ভিত্তিক সোস্যাল সাইট

President's Message


শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। কাজেই সবার জন্য শিক্ষা অর্জন করা মানুষের মৌলিক অধিকার। শিক্ষার্থীদের মজ্জাগত প্রতিভা সহজে বিকাশের জন্য প্রতিষ্ঠানটিতে রয়েছে সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি কম্পিউটার .... Details

হাবিবুর রহমান

সভাপতি

রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়, রংপুর।

প্রধান শিক্ষকের বাণী

শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। কাজেই সবার জন্য শিক্ষা অর্জন করা মানুষের মৌলিক অধিকার। এ অধিকারকে যথাযথভাবে বাস্তবায়নের মাধ্যমে বিশ্বের অনেক দেশ আজ উন্নত দেশ হিসেবে উন্নতির চরম শিখরে আরোহণ করেছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ তার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে সাধ্যমত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যুগের সাথে সংগতিপূর্ণ বিকাশের জন্য আমরা প্রত্যেকেই ভাবি নিজ নিজ সন্তানদের নিয়ে। প্রকৃতির সন্তান মানব শিশুকে পরিশুদ্ধ হতে হয়, পরিপুর্ণ হতে হয় স্বীয় সাধনায়। এ ক্ষেত্রে শিক্ষায় হলো আমাদের মূলমন্ত্র। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি শিক্ষার মৌলিক উদ্দেশ্য হলো আচরণের কাঙ্ক্ষিত পরিবর্তন। আর এ লক্ষ্যে তাদেরকে সৃজনশীল, স্বাধীন, সক্রিয় এবং দায়িত্বশীল সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা। এ জন্য প্রয়োজন যোগ্য শিক্ষকমন্ডলী এবং উপযুক্ত শিক্ষাদান পদ্ধতির সমন্বয়ে একটি শিক্ষাবান্ধব পরিবেশ। আমি বিনয়ের সাথে দাবী করি, লালমনিরহাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসব কিছুর সমন্বয় ঘটানো সম্ভব হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মজ্জাগত প্রতিভা সহজে বিকাশের জন্য প্রতিষ্ঠানটিতে রয়েছে সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি কম্পিউটার শিক্ষা, সাংস্কৃতিক, আনুষ্ঠানিক, খেলাধুলাসহ নানাবিধ শিক্ষা।

মিজানুর রহমান

প্রধান শিক্ষক

রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়, রংপুর।

স্কুল ইতিহাস

স্কুলের প্রধান ফটক প্রধান শিক্ষকের বাণী তথ্য ও যোগাযোগের প্রযুক্তি (Information and Communication Technology-ICT) মানুষের জীবন ধারণের পদ্ধতিকে বদলে দিয়েছে- জীবনকে করেছে সহজ ও আনন্দময়। শিক্ষাক্ষেত্রেও তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তি যোগ করেছে নতুন মাত্রা। আইসিটি স্থান করে নিয়েছে গ্রামের বিদ্যালয়ের সেই ছোট্ট শ্রেণিকক্ষেও - যেখানে শিক্ষার্থীরা বই-খাতার পাশাপাশি কম্পিউটারেও শিখতে শুরু করেছে। জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০-এর আলোকে আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞান এবং সকল ক্ষেত্রে তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মকে ডিজিটাল বাংলাদেশের যোগ্য রূপকার হিসাবে গড়ে তোলে ‘‘ভিশন ২০২১’’ বাস্তবায়নের জন্য এই ওয়েবসাইট অত্যন্ত সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। মূলত শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবক এই তিন অনুসঙ্গের নিকট তথ্য, উপাত্ত সহজে ও দ্রুততার সহিত পৌঁছানো এবং তথ্য প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করে শিক্ষা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তর এবং অন্যান্য সরকারি অফিসের যোগাযোগ রক্ষা করা এই ওয়েবসাইটের লক্ষ্য। দিনাজপুর জেলার অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, দিনাজপুর ইতোমধ্যে সকল শিক্ষকদের নিয়ে ‘‘মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম’’ বিষয়ক অভ্যন্তরিন প্রশিক্ষন সম্পন্ন করেছে। এই ওয়েবসাইটটি খোলার মাধ্যমে বিদ্যালয়ের সামগ্রিক মান উন্নয়ন ও তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করণে একটি নতুন মাত্রা যুক্ত হবে এই প্রত্যাশা করছি। লায়লা হাসিনা বানু প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, দিনাজপুর। স্কুল ইতিহাস মানুষের জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন হল শিক্ষা । শিক্ষার প্রথম এবং প্রধান কাজ হল পরিবেশের সাথে শিক্ষার্থীর সংগতি বিধান করা । শিক্ষা অর্জনে আনুষ্ঠানিক শিক্ষার গুরুত্ব অনস্বীকার্য আর আনুষ্ঠানিক শিক্ষা অর্জনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তথা বিদ্যালয়ের কোন বিকল্প নেই । তাই দিনাজপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় দীর্ঘ দিন ধরে শিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে সে ভূমিকা নিষ্ঠার সাথে পালন করে আসছে । উত্তরাঞ্চল তথা সমগ্র বাংলাদেশে যে কয়টি আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে, দিনাজপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় নিঃসন্দেহে তাদের অন্যতম । সু-প্রসিদ্ধ কাটারী ভোগ চাল আরত রসাল লিচুর জেলা দিনাজপুর । সেই জেলার মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে পুনর্ভবা নদী । এই নদীর প্রায় ছয় কিলোমিটার পুর্বে সমান্তরাল ভাবে বহমান ছিল গর্ভেশ্বরী নদী । কালের বিবর্তনে যা আজ মরা নদীর রূপ নিয়েছে । এই দুই নদীর মাঝখানে গড়ে উঠেছিল একটি বন্দর নগরী । এই বন্দর নগরীর আধুনিক রূপ আজকের দিনাজপুর শহর । আর এই শহরের প্রাণ কেন্দ্রে এক মনোরম পরিবেশে এই বিদ্যালয়টি অবস্থিত । দেশের উত্তরাঞ্চলকে বলা হয়ে থাকে অবহেলিত জনপদ । কিন্তু অতীতের দিনাজপুর ছিল একটি সমৃদ্ধ বন্দর । তাই শস্য, সৌন্দর্য, শিল্প ও ঐশ্বর্যে ভরপুর দিনাজপুর ছিল একটি উন্নত জনপদ । তৎকালীন দিনাজপুর জেলার প্রাচীন শিল্লহা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩টি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ছিল, তাদের মধ্যে দিনাজপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ছিল অন্যতম । নারী শিক্ষা বিস্তারের ক্ষেত্রে এই বিদ্যালয়টি শুরু থেকে অগ্রনী ভূমিকা পালন করে আসছে । ১৮৫৪ সালের দ্রুত শিক্ষা বিতরণ নীতির অনুদান প্রাপ্ত আঠারটি বালিকা বিদ্যালয়ের মধ্যে এই বিদ্যালয়টি অধিভূক্ত ছিল । তৎকালীন জেলা কালেক্টরের পত্নী মিসেস রেডেনশ এর ব্যাক্তিগত উদ্দ্যোগের সাথে মহারাজা জগদীশ নাথের আর্থিক সহযোগিতায় এই বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয় । এই অঞ্চলের মেয়েরা এই বিদ্যালয়ে শিক্ষা গ্রহণ করে আলোক বর্তিকা হস্তে শিক্ষার আলো সমাজে বিকিরণ করেছেন । বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার কয়েক বছর পরে একটি ইংরেজি মাধ্যমের উচ্চ বিদ্যালয়ে উন্নীত হয় ।


সংবাদ - ডিজিটাল আলো.কম

  • 10-April, 2018
    উইন্ডোজ ১০ এর পরবর্তী আপডেট কবে আসবে তার দিনক্ষণ জানালো মাইক্রোসফট। Read more...
  • 06-May, 2018
    স্মার্টফোনের মতো নানা ডিজিটাল ডিভাইসের নীল আলো অন্ধত্ব ত্বরান্বিত করতে পারে। Read more...
  • 02-June, 2018
    ভূমিকম্প একটি ভয়ানক আতঙ্ক এবং বিধ্বংসের নাম। তাই ভূমিকম্প পরবর্তী ‘আফটারশক’ সম্পর্কে জানাবে গুগল। Read more...

Attendence

Total Student 1407

Today Present 0

Yesterday Present 0

Present

Absent

ডাউনলোড লিংক

প্রতিষ্ঠানের অবস্থান

Copyright © 2018: digitalalo.com

Powerd By: AloranBD Soft LTD.(A Sister Concern of AloranBD Corporation)